1. mtishopon@gmail.com : sangbaddinraat.com :
  2. minhajul@sangbaddinraat.com : Minhajul Bari : Minhajul Bari
  3. news@sangbaddinraat.com : Sangbad Dinraat : SD News
শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৩৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
**** বহুল প্রচারিত স্বনামধন্য অনলাইন নিউজপোর্টাল সংবাদ দিনরাত বিক্রি করা হবে। আগ্রহীকে যোগাযোগ (০১৬১০৯১১৮৪৫) করার জন্য অনুরোধ রইলো ***  

নয় দফা দাবিতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের উদ্দেশে লংমার্চ

নিউজ ডেস্ক, সংবাদ দিনরাত
  • শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৯ বার পড়া হয়েছে

নয় দফা দাবিতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের উদ্দেশে লংমার্চ শুরু করেছে ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকাল ১০টায় শাহবাগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে লংমার্চ শুরু হয়। এ সময় বক্তরা বলেন, নয়টি দাবি বাস্তবায়ন না হলে হরতাল, অবরোধসহ আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

লংমার্চ দুপুরে নারায়ণগঞ্জের চাষাড়ায় সমাবেশ করবে। এরপর বিকেলে কুমিল্লায় আরেকটি সমাবেশ করা হবে। রাতে ফেনীতে অবস্থান করার পরে শনিবার সকালে সেখানে আরেকটি সমাবেশ করবে বাম রাজনৈতিক দলগুলোর সমন্বিত জোট। এরপর বিকেল ৪টায় নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে সমাবেশের মাধ্যমে লংমার্চ শেষ হবে।

দাবিকৃত ৯ দফা হলো:

১. সারাদেশে অব্যাহত ধর্ষণ-নারীর প্রতি সহিংসতার সঙ্গে যুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ধর্ষণ, নিপীড়ন বন্ধ ও বিচারে ব্যর্থ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অবিলম্বে অপসারণ করতে হবে।

২. পাহাড়-সমতলে আদিবাসী নারীদের ওপর সামরিক-বেসামরিক সকল প্রকার যৌন ও সামাজিক নিপীড়ন বন্ধ করতে হবে।

৩. হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি, বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানে নারী নির্যাতন বিরোধী সেল কার্যকর করতে হবে। সিডও সনদে বাংলাদেশকে স্বাক্ষর ও তার পূর্ণ বাস্তবায়ন করতে হবে। নারীর প্রতি বৈষম্যমূলক সকল আইন ও প্রথা বিলোপ করতে হবে।

৪. ধর্মীয়সহ সকল ধরনের সভা-সমাবেশে নারীবিরোধী বক্তব্য শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে হবে। সাহিত্য, নাটক, সিনেমা, বিজ্ঞাপনে নারীকে পণ্য হিসেবে উপস্থাপন বন্ধ করতে হবে। পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রেণে বিটিসিএলের কার্যকরী ভূমিকা নিতে হবে। সুস্থ ধারার সাংস্কৃতিক চর্চায় সরকারিভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করতে হবে।

৫. তদন্তকালীন সময়ে ভিকটিমকে মানসিক নিপীড়ন-হয়রানি বন্ধ করতে হবে। ভিকটিমের আইনগত ও সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

৬. অপরাধ বিজ্ঞান ও জেন্ডার বিশেষজ্ঞদের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। ট্রাইব্যুনালের সংখ্যা বাড়িয়ে অনিষ্পন্ন সকল মামলা দ্রুত নিষ্পন্ন করতে হবে।

৭. ধর্ষণ মামলার ক্ষেত্রে সাক্ষ্য আইন ১৮৭২-১৫৫ (৪) ধারাকে বিলোপ করতে হবে এবং ডিএনএ আইনকে সাক্ষ্য প্রমাণের ক্ষেত্রে কার্যকর করতে হবে।

৮. পাঠ্যপুস্তকে নারীর প্রতি অবমাননা ও বৈষম্যমূলক যে কোনো প্রবন্ধ, নিবন্ধ, পরিচ্ছেদ, ছবি, নির্দেশনা ও শব্দ চয়ন পরিহার করতে হবে।

৯. গ্রামীণ সালিশের মাধ্যমে ধর্ষণের অভিযোগ ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টাকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার