1. mtishopon@gmail.com : sangbaddinraat.com :
  2. minhajul@sangbaddinraat.com : Minhajul Bari : Minhajul Bari
  3. news@sangbaddinraat.com : Sangbad Dinraat : Sangbad Dinraat
শনিবার, ১৫ অগাস্ট ২০২০, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
**** বহুল প্রচারিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল সংবাদ দিনরাত সারাদেশে জেলা, থানা/উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাস প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে ***  

টেকনাফ হােয়াইক্যং থেকে র‍্যাবের অভিযানে ৩লক্ষ ইয়াবাসহ ২জন অস্ত্রধারী মাদক কারবারী আটক

কক্সবাজার সংবাদদাতা
  • আপডেট টাইম শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
  • ৫৩ বার পড়া হয়েছে

বর্তমানে আমাদের দেশের যুব সমাজের অধঃপতনের অন্যতম কারণ হচ্ছে মাদকাসক্তি। মাদকাসক্তির ভয়াল থাবা। প্রতিনিয়ত আমাদের সমাজকে ধ্বংস করে ফেলছে। দেশব্যাপী মাদকদ্রব্যের বিস্তাররােধ এবং দেশের যুব সমাজকে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে রক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে র্যাবের মাদক বিরােধী অভিযান দেশের সর্বস্তরের জনসাধারণ
কর্তৃক বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায়, র‍্যাব-১৫, কক্সবাজার, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানাধীন হােয়াইক্যং বালুখালী (তুলাতলি) জামে মসজিদ থেকে অনুমান ১৫০ ফুট দক্ষিনে কক্সবাজার টু টেকনাফ পাঁকা রাস্তার পাশে কালভার্ট এর নিচ দিয়ে প্রবাহিত ছােট ছড়া দিয়ে পায়ে হেটে কতিপয় অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ী মাদকের একটি বড় চালান নিয়ে যাচ্ছে।

উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১৫, কক্সবাজার এর একটি চৌকস আভিযানিক দল আজ ভােরে উপরােক্ত স্থানে পৌছালে র‍্যাব সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের হাতে থাকা দেশীয় লােহার তৈরি কিরিচ ব্যবহার করে পালিয়ে যাওয়ার প্রাক্কালে আসামী মােঃ শফিক (২৫), পিতা মােঃ ইলিয়াছ, সাং-বালুখালী রােহিঙ্গা ক্যাম্প নং-০৮ W, ব্লক-এ-১৯, থানা-উখিয়া, জেলা-কক্সবাজার, আব্দুল করিম (২২) পিতা-আবুল কাশেম, সাং-হােয়াইক্যং বালুখালী (তুলাতলি) কোলা মিয়া গুনাপাড়া ওয়ার্ড নং-২, ইউপি-হােয়াইক্যং থানা-টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজার ধৃত আসামীদের সহযােগী অজ্ঞাতনামা ৩জন কৌশলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে উপস্থিত স্বাক্ষীদের সম্মুখে ধৃত আসামীদের কাধে থাকা ২টি পাটের বস্তা তল্লাশী করে সর্বমোট ৩,০০,০০ (তিন লক্ষ) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার হয়।

ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে যে, পলাতক আসামীদের সহযােগীতায় দীর্ঘদিন যাবৎ মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেট মায়ানমার থেকে নাফ নদী দিয়ে কৌশলে বাংলাদেশে পাচার করে থাকে। উদ্ধারকৃত মাদকের (ইয়াবা) মূল্য আনুমানিক ১৫ কোটি টাকা প্রায় ।

গ্রেফতারকৃত আসামী ও উদ্ধারকৃত মালামাল সংক্রান্ত পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। র‍্যাব-১৫ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার